সংস্করণ
Bangla

ছোট ও মাঝারি কোম্পানিকে হেজিং সাহায্য করে Hedgemantra

YS Bengali
26th Nov 2015
Add to
Shares
0
Comments
Share This
Add to
Shares
0
Comments
Share
image


বিদেশের সঙ্গে ব্যবসার সময় হয় ভারতীয়দের হয় বিদেশী মূদ্রায় দাম দিতে হয় নয়তো তাঁরা বিদেশী মূ্দ্রা পান (বিদেশ থেকে কেনা হচ্ছে না বিদেশে বিক্রি করা হচ্ছে তার ওপর নির্ভরশীল)। ব্যবসায়িক লেনদেনের দিন আর পয়সা আদান প্রদানের দিনের মধ্যে প্রায়শই কিছুদিনের পার্থক্য থাকে। কারণ বেশিরভাগ ব্যবসায়ীই কয়েকদিন সময় দেন টাকা দেওয়ার জন্য যাকে বলে ক্রেডিট পিরিয়ড। এই ক্রেডিট পিরিয়ডে অনেক সময়ই বৈদেশিক মূদ্রার মূল্য পরিবর্তিত হয় (ফরেক্স ফ্লাকচুয়েশন), এর ফলে ক্ষতির মুখে পড়তে হয় কোম্পানিটিকে। এই ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য প্রয়োজন হেজ (hedge)। কিন্তু বেশিরভাগ কোম্পানিই বিশেষত ছোট ও মাঝারি কোম্পানিগুলির হেজ সুরক্ষার ব্যবস্থা থাকে না।

ডেলয়েটে কাজ করার সময় এই ফাঁকটা লক্ষ্য করেন জয়দীপ হালবে। চেন্নাইয়ের বাসিন্দা হালবে পেশায় চাটার্ড অ্যাকাউনট্যান্ট। চার বছর কাজ করেন ডেলয়েটে। বছর তিনেক আগে চাকরি ছেড়ে ডেলয়েটের সহকর্মী বিবেক কৃষ্ণা ও ভেঙ্কট রমনের সঙ্গে শুরু করেন Hedgemantra। “আমরা লক্ষ্য করেছিলাম একটা বড় অংশের গ্রাহক যাঁরা বৈদেশিক মূদ্রায়ে লেনদেন করেন তাঁদের হেজ নেই, বললেন জয়দীপ। সেখান থেকেই এমন কিছু একটা তৈরির পরিকল্পনা আসে যাতে কোম্পানিগুলি ফরেক্স ফ্লাকচুয়েশনের এই ঝুঁকি থেকে বাঁচতে পারেন।

প্রায় দুবছর ধরে পরিকল্পনার পর জয়দীপরা স্থির করেন গ্রাহকদের সঙ্গে মুখোমুখি কাজ করার বদলে তাঁরা একটি পোর্টাল তৈরি করবেন, যাতে একসঙ্গে অনেকের কাছে পৌঁছনো যায়। “এই পোর্টালে গ্রাহক হেজিংয়ের বিভিন্ন উপায়ের মধ্যে তুলনা করতে পারেন”, জানালেন জয়দীপ। এরফলে কোম্পানিগুলি সঠিক তথ্যের ওপর ভিত্তি করে তাদের হেজিংয়ের সিদ্ধান্ত নিতে পারে।

হেজিং একটি অত্যন্ত জটিল বিষয়, এর ভিত্তিতে কোম্পানিগুলিকে মোটামুটি তিনটি ভাগে ভাগ করা যায়।

বড় কর্পোরেট ও বহুজাতিক সংস্থা, যাদের প্রচুর ফরেক্স এক্সপোসার থাকে কিন্তু একই সঙ্গে ২০-৩০ জন কর্মী থাকেন তাদের কর্পোরেট অফিসে।

মাঝারি মাপের সংস্থা, যাদের একটা ভাল রকমের ফরেক্স এক্সপোসার থাকে এবং তার বেশিরভাগটাই হেজ করা হয়, তবে শুধুমাত্র ফরওয়ার্ড কনট্র্যাক্টের মাধ্যমে।

তৃতীয় ও সব থেকে বড় ভাগটি হল ছোট ও মাঝারি মাপের কোম্পানি, যাদের ভাল রকমের ফরেক্স এক্সপোসার থাকলেও কোনও হেজিং নেই।

এই তৃতীয় অংশটির কাছে পৌঁছনোই লক্ষ্য Hedgemantra র, “আমরা মনে করি হেজিং এই কোম্পানিগুলির জন্য লাভজনক। তারাও সেটা জানে, কিন্তু উপযুক্ত তথ্য ও জানাবোঝা না থাকায় তারা হেজিংয়ের সুবিধা নিতে পারেনা”, বললেন জয়দীপ। Hedgemantra এর লক্ষ্য ৩ মিলিয়ন ছোট ও মাঝারি মাপের সংস্থাকে নিজেদের বাজারে পরিণত করা।


লেখা-জুবিন মেহতা

অনুবাদ-সানন্দা দাশগুপ্ত

Add to
Shares
0
Comments
Share This
Add to
Shares
0
Comments
Share
Report an issue
Authors

Related Tags