সংস্করণ
Bangla

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পনীতি' ঘোষণা রাজস্থানের

YS Bengali
2nd Dec 2015
Add to
Shares
0
Comments
Share This
Add to
Shares
0
Comments
Share


রাজস্থানের সব কটি জেলায় শিল্পের আঁতুর ঘর স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে, ছোট, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প দফতর। জয়পুরে অনুষ্ঠিত ‘রিসারজেন্ট রাজস্থান সামিটে’ এসে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কলরাজ মিশ্র বলেন, “ভারতকে উত্পাদনের কেন্দ্র করে তোলার যে পরিকল্পনা প্রধানমন্ত্রী নিয়েছেন, ছোট, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প ছাড়া তা সম্ভব নয়”। ছোট শিল্প যে শুধু চাকরির ব্যবস্থা করে তাই নয় অ্যাঁন্ত্রপ্রন্যয়রশিপ বর্ধিত করতেও তা সহায়ক। এই অনুষ্ঠানেই এমএসএমই-গ্রোথ ইঞ্জিন ফর মেক ইন ইন্ডিয়া-অপরচ্যুনিটিস অ্যান্ড চ্যালেঞ্জেস সেশনে, মিশ্র এবং রাজস্থানে মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়া রাজ্যের ছোট, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের নীতিও ঘোষণা করেন। 


image



বসুন্ধরা রাজে বলেন, “তাঁর সরকার ছোট, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে বিশেষ জোর দিয়েছে। শুধু মাত্র বৃহৎ শিল্পের দিকে নজর দিয়ে, ছোট শিল্পকে অবহেলা করা ঠিক নয়। একটা সময় ছিল যখন বড় শিল্প মানেই ভাল, কিন্তু আজকের দিনে ‘ছোট’ মানেই বড়”।

রাজস্থানের এমএসএমই নীতির মূল কথা হল, ব্যবসাকে সহজ করা, শ্রম আইনের পরিবর্তন, ব্যবসায় সাহায্যকারী কেন্দ্র গঠন, উত্সাহ প্রদানকারী লাভের সুযোগ ও শিল্পের বৃদ্ধির জন্য কর ছাড়।

৫৬ পাতার এই নীতির খসড়া অনুযায়ী, অর্থনীতিতে দুটি প্রয়োজনীয় কাজ করে এমএসএমই। প্রথমত বৃহৎ শিল্পের সহায়ক ক্ষেত্র তৈরি করা, দ্বিতীয়ত নিজস্বভাবে পরিষেবা ও পণ্য সরবরাহ।

সংখ্যার ভিত্তিতে দেখলে এমএসএমই, শিল্পের মেরুদণ্ড, এবং কৃষির পর সব থেকে বেশি কর্ম সংস্থান হয় এই ক্ষেত্রে। নতুন বিনিয়োগ প্রস্তাবের সব আবেদন এক মাত্র জেলা শিল্প কেন্দ্রের মাধ্যমে চালিত হবে, যাতে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে অনুমোদন পাওয়া যায়।

রাজস্থানের ৩৩ টি রাজ্যে ছোট, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে সাহায্যকারী যে কেন্দ্রগুলি তৈরি হবে, তারা নতুন বিনিয়োগকারীদের সাহায্য করবে, এবং রাজ্য স্তরে যে এমএসএমই ফেলিসিটেশন কাউন্সিল রয়েছে, সেটিকে আরও শক্তিশালী ও কার্যকর করা হবে।

এমএসএমইর উন্নতির জন্য ক্লাস্টার গঠনের প্রক্রিয়াতে উত্সাহ দেওয়া হবে, এর ফলে তা হবে সাশ্রয়ী, সর্বব্যাপী, টেঁকসই. পাশাপাশি সুস্থ প্রতিযোগিতার পরিবেশও গড়ে উঠবে।

খসড়ার উল্লেখযোগ্য প্রতিশ্রুতিগুলি হল রুগ্ন ছোট ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের পুনরুজ্জীবন, দক্ষতা বৃদ্ধি, প্রচার সহায়তা, মান উন্নয়নে সহায়তা, খাদি-হ্যান্ডলুম এবং হস্তশিল্পের উন্নতি, শুরুয়াতি ব্যবসায় সাহায্য, রাজস্থান ইনভেস্টমেন্ট স্কিম-২০১৪ এর আওতায় আর্থিক সুবিধা প্রদান ইত্যাদি।

পিওয়ান ইন্ডাস্ট্রিসের চেয়ারম্যান ও এমডি সলিল সিংঘল, লঘু উদ্যোগ ভারতীর জাতীয় সভাপতি ওম প্রকাশ মিত্তল, ইন্ডিয়ামার্ট ইন্টারমেশ লিমিটেডের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও দীনেশ আগরওয়াল, এসবিবিজের ম্যানেজিং ডিরেক্টর জ্যোতি ঘোষ সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ বক্তব্য রাখেন সভায়।


অনুবাদ - সানন্দা দাশগুপ্ত

Add to
Shares
0
Comments
Share This
Add to
Shares
0
Comments
Share
Report an issue
Authors

Related Tags