সংস্করণ
Bangla

ট্রান্সজেন্ডারদের প্রতি গোঁড়ামি কাটাল চার্চ

YS Bengali
6th Nov 2016
Add to
Shares
2
Comments
Share This
Add to
Shares
2
Comments
Share

ট্রান্সজেন্ডার ও সমকামীদের লিঙ্গবৈধতা ও অধিকার দেশের শীর্ষ আদালতে স্বীকৃত হলেও এ ব্যাপারে ধর্মীয় নীতিগত বাধা ছিল। এবার সেই গোঁড়ামি কাটাতে চলেছে ক্যাথলিক চার্চ। জন্মগতভাবে যাঁরা সমকামী বা ট্রান্সজেন্ডার তাঁদের সম্পর্কে ধর্মীয় গোঁড়ামি কাটিয়ে এই সম্প্রদায়ের উন্নয়নে ও কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে কাজ করবে ক্যাথলিক চার্চ। তবে যাঁরা লিঙ্গ পরিবর্তন করেছেন, এ ক্ষেত্রে ক্যাথলিক চার্চ তাঁদেরকে স্বীকৃতি দিচ্ছে না। এ ব্যাপারে চার্চের যুক্তি হল, লিঙ্গ পরিবর্তন একরকম প্রকৃতির ওপর খোদাগিরি। এটা অস্বাভাবিকতা।

image


সমকামী বা ট্রান্সজেন্ডারদের সমাজের মূলস্রোতের সঙ্গে যুক্ত করা সরকারের লক্ষ্য। ওড়িশা, মধ্যপ্রদেশ-সহ দেশের কয়েকটি রাজ্যের সরকার ইতিমধ্যেই বিষয়টি নিয়ে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। পশ্চিমবঙ্গ সরকারও ট্রান্সজেন্ডার ও সমকামীদের নিয়োগের প্রসঙ্গটি বিবেচনা করছে। খতিয়ে দেখা হচ্ছে, কোন কোন ধরনের পেশায় এঁদের কাজ দেওয়া যেতে পারে। এই পরিস্থিতিতে গোঁড়ামি কাটিয়ে ক্যাথলিক চার্চ জন্মগতভাবে সমকামী ও ট্রান্সজেন্ডারদের পাশে দাঁড়ানোর ফলে ওই সম্প্রদায়গুলির মানুষজনের নাগরিক সমানাধিকারের দাবি আরও জোরালো হল। সেইসঙ্গে তা অন্য এক মাত্রাও পেল।স্বাধীন দেশে নাগরিক মর্যাদা ভোগ করার পথে আরও কিছুদূর এগোলেন সমকামী ও ট্রান্সজেন্ডাররা।

ক্যাথলিক চার্চের সমাজ উন্নয়ন বিষয়ক সংস্থা কাটিরাসের তরফে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। গত তিন বছর আগে থেকেই সমকামী ও ট্রান্সজেন্ডারদের সম্পর্কে চার্চের গোঁড়়ামির বরফ গড়তে শুরু করে। হোতা ছিলেন পোপ স্বয়ং। পোপ সেই সময় বলেছিলেন, কে কি তা আমি বিচার করবার কে? পোপ আসলে প্রকারান্তরে চার্চ আরোপিত হাজার হাজার বছরের এক নিষেধাজ্ঞার সমালোচনা করেছিলেন। ট্রান্সজেন্ডার ও সমকামী সম্পর্কে ক্যাথলিক খ্রিস্টানদের ভিতর যে গোঁড়ামির বীজ বপন করেছিল ক্যাথলিক চার্চ, তা থেকে মুক্তির ইঙ্গিত দিয়েছিলেন পোপ স্বয়ং। এরপরে চার্চের এই সিদ্ধান্ত সর্বতোভাবে ঐতিহাসিক।

ট্রান্সজে্ন্ডার ও সমকামীদের মানুষের মতো মর্যাদার পাওয়ার দাবি বাস্তবায়িত করতে চার্চ এখন তাঁদের আর্থিকভাবে স্বনির্ভর করে তুলতে চাইছে। সুখবর বৈকি!

স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা কারিটাস ইন্ডিয়ার এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ফেড্ররিক ডি সুজা বলেছেন, জন্মগতভাবে যাঁরা সমকামী বা ট্রান্সজেন্ডার তাঁদের আর্থিকভাবে স্বনির্ভর করে তোলার জন্যে আমরা কাজ করব। এখন আমরা নতুন ভাবে চিন্তা করার ঐতিহাসিক ক্ষমতা অর্জন করেছি।

তবে যাঁরা লিঙ্গ পরিবর্তন করেছেন, ক্যাথলিক চার্চ এখনও ওঁদের ঘোর বিরোধী। চার্চের চোখে, লিঙ্গ পরিবর্তন করাটা অনৈতিক। সেই কারণে চার্চ ওঁদের সঙ্গে নেই। এই শ্রেণির মানুষের কর্মসংস্থা‌ন বা সামাজিক অবস্থান উন্নত করতে চার্চের কোনও পরিকল্পনাও নেই বলে সোজাসাপটাভাবে জানিয়েছে কারিটাস ইন্ডিয়া।

কারিটাসের মতে, ওঁরা সৃষ্টির ওপর কারিগরি করছেন। এটি প্রাকৃতিক নিয়মের বিরোধিতার পর্যায়ে পড়ছে বলে মনে করে ক্যাথলিক চার্চ। চার্চের তরফ থেকে খুবই স্পষ্টভাবে জন্মগত ও জন্মগতভাবে ট্রান্সজেন্ডার পর্যায়ের মানুষ নন, এই দুতরফের ভিতর বিভাজনটিকে নৈতিকতার মোড়কে ব্যাখ্যা করা হয়েছে।

তবে ক্যাথলিক চার্চের এই সিদ্ধান্তের ফলে জন্মগতভাবে ট্রান্সজেন্ডাররা অন্য প্রতিষ্ঠানগুলিতেও কাজের দরখাস্ত করার ক্ষেত্রে আরও কিছুটা স্বাধীনতা উপভোগ করতে চলেছেন। ইতিমধ্যে ওড়িশা সরকার রাজ্যের সংশোধনাগারগুলিতে ওয়াড্রেন হিসাবে ট্রান্সজেন্ডারদের নিয়োগ করছে। অতিরিক্ত ইন্সপেক্টর জেনারেল অব প্রিজন এম আর পট্টনায়ক এই খবর জানিয়েছেন। ১৮৫জনকে সংশোধনাগারের ওয়াড্রেন হিসাবে নিয়োগ করা হচ্ছে। বিশিষ্ট সমাজসেবী মীরা পারিদা জানিয়েছেন, দেশের মধ্যে ওড়িশা সরকারই প্রথম এই পদক্ষেপ নিল। জাতীয় খাদ্য নিরাপত্তা আইনে ট্রান্সজেন্ডারদের কাজ দেওয়া হচ্ছে।

Add to
Shares
2
Comments
Share This
Add to
Shares
2
Comments
Share
Report an issue
Authors

Related Tags