সংস্করণ
Bangla

শিশু শিক্ষার বিকাশে দম্পতির উদ্যোগ

YS Bengali
12th Jan 2016
Add to
Shares
0
Comments
Share This
Add to
Shares
0
Comments
Share

শিশু মনস্তত্ত্বের বিকাশে প্রচলিত ধারণা, শিশুর বিভিন্ন সংবেদনশীলতা তার সার্বিক শিক্ষা এবং বিকাশের উপর বেশ প্রভাবশীল। ২০০৮ সালে ব্রিটেনের শিশু মনস্তত্ত্ববিদ ডক্টর লিন ডে “বেবি সেনসর” ও “টডলার সেন্স” প্রোগ্রাম তৈরি করেন। একটি বাচ্চা বড় হয়ে ওঠার সময় মা বাবা আর কাছের মানুষগুলোর বড় ভূমিকা থাকে। প্রোগ্রামগুলো সেভাবেই তৈরি যাতে জন্ম থেকে ১৩ মাস অবধি তা শিশুর বিভিন্ন চেতনায় নাড়া দেয়, ফলে শিশুর দৈহিক ও মস্তিস্কের বিকাশ ঘটে।

image


সোপান তৈরি

ভারতে প্রাথমিক শিশুশিক্ষার ইকোসিস্টেমে কিছু ফাঁক নজরে পরে অঞ্জু এবং জোসের। প্রবাসের কর্পোরেট চাকরীকে বাই বলে মেয়েকে নিয়ে ভারতে ফিরে আসেন। দেশে শিশুশিক্ষার জন্য সত্যিকারের গঠনমূলক কিছু করতে চাইছিলেন এই স্বামীস্ত্রী।

অক্টোবর ২০১৪ –এ তাঁরা প্রতিষ্টা করেন “এ জে প্লাকাল এডুভেঞ্চারস”। পুরস্কৃত আন্তর্জাতিক প্রাথমিক শিক্ষা কার্যক্রম এবং স্থানীয় সমস্যার সমাধান, যে সমস্যার মুখে সাধারণ ভারতীয় নাগরিক পরে – এই দুই দিয়েই তাদের যাত্রা শুরু।

“ইউকে থেকে আনা বেবি সেনসরি, টডলার সেন্স এবং মিনি প্রফেসার প্রোগ্রামের আমরাই প্রতিনিধি। আমরাই ভারত ও তার পার্শবর্তী দেশগুলোর প্রধান ফ্রানচাইসি। আমরা দ্য অ্যালকেমি নার্সারি ও চালনা করি। এটি শিশুদের জন্য একটি বিশেষ ডে-কেয়ার ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান”, বলেন অঞ্জু।

অভিভাবকদের সঙ্গে সর্বাঙ্গীণ আলোচনা করে এই দম্পতি জানতে পারেন যে সম গুণমানের ডে-কেয়ার ও প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অভাববোধে তারা অনুতপ্ত। কারণ সঠিক ডে-কেয়ার ও প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গুণমানের ওপরেই শিশুর প্রাথমিক বৌদ্ধিক ও শারীরীক বিকাশ নির্ভর করে।

“এই চাহিদা পূরণ করতেই আমরা অ্যালকেমি নার্সারি চালু করি। এটি একটি বিশেষ ডে-কেয়ার ও প্রাক-বিদ্যালয় যেখানে জন্ম থেকে তিন বছর বয়সী শিশুদের পথ প্রদর্শণ করা হয়, Early Years Foundation Framework Stage (EYFS), UK –র কাঠামো অনুযায়ী”, বলেন অঞ্জু।

যদিও প্রোগ্রামগুলি ভারতে স্বতঃস্ফূর্ত ভাবেই গ্রহণ করা হয়েছে, তবুও ভারতে অবস্থিত নানা সাংস্কৃতিক প্রতিবন্ধকতা থাকাতে, তাঁরা ঠিক করেছেন যে এই শিশু কার্যক্রমটি তাদের সযত্নে আরও বেশী সময় ধরে চালাতে হবে। তাই তারা বিভিন্ন শিশু স্বাস্থ্যকেন্দ্র, বড় বসতিপূর্ণ সম্প্রদায় এবং সন্তান-মা ভাণ্ডারের সহযোগিতাতে হাত বাড়িয়েছেন, যাতে তারা বুঝতে পারে একটি শিশুর জীবনে সঠিক প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষার প্রয়োজনীয়তা।

পাশাপাশি তারা টডলার সেন্স প্রোগ্রাম শুরু করেছেন পাঁচ বছরের নিচে শিশুদের জন্য। যে সব অভিভাবক তাদের কার্যক্রমের সম্পর্কে জানতে পেরেছেন,তাদের চাহিদা বেড়ে যাওয়ার জন্যে এই দম্পতিকে ব্যাঙ্গালুরুর বিভিন্ন জায়গায় অতিরিক্ত উদ্যোগ নিতে হয়েছে।

“চড়া দামের জমির মোকাবিলা করতে, আমরা আমাদের ক্লাসগুলো আমাদের উপস্থিত কেন্দ্রেই করিয়ে থাকি, যা আন্তর্যাতিক স্বাস্থ্য, নিরাপত্তা প্রক্রিয়ার সমতূল্য”, জানান জোস। আপাতপক্ষে, এই প্রথম বছরটি তাদের পক্ষে বেশ গুরুত্বপূর্ণ। তিনটি শিক্ষা কেন্দ্রে তাদের দুটি কার্যক্রম তারা চালু করতে পেরেছেন ডে-কেয়ার ও প্রাক-বিদ্যালয়ের শাখা বিস্তার করে।

শিখন ও পূণঃ শিখন

যদিও এ জে প্লাকাল এডুভেঞ্চারস স্থাপিত হয়েছে ২০১৪ সালে কিন্তু এই প্রতিষ্টানের ধারণার বীজ রোপণ হয়েছিল ২০১২ সালে। অঞ্জু তাঁর কর্পোরেট পেশা থেকে সাময়িক অবসর নেন তাঁদের কন্যাকে লালন পালন করতে। সে নিজে এক অসাধারণ পড়ুয়া হওয়াতে, তাঁর নতুন রূপে নিজেকে গড়ে তুলতে, অঞ্জু ভারতে শিশু বিকাশ সম্পর্কে পুংখানুপুখরূপে পড়ে ফেলেছিলেন।

যতই তিনি পড়তে আর গবেষণা করতে লাগলেন,ততই তিনি বুঝতে পারলেন, প্রথম পাঁচ বছরে শিশুর আনুভূতিক উত্তেজনা প্রভাবের গুরুত্ব। স্বামীর সঙ্গে কথা বলার পর দম্পতিযুগল বিভিন্ন অভিভাবক- শিশু কার্যক্রম অন্বেষণ করতে লাগলেন এবং কন্যাসহ অংশগ্রহণ করতে লাগলেন।

“এভাবেই আমরা বেবি সেন্সরি প্রোগ্রামের অনুসন্ধান পাই, যা ইউ কে র অন্যতম শিশু মনঃস্তত্তবিদ ডঃ লিন্ড –এর গড়া। আমরা যতগুলি কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করেছি তার মধ্যে বেবি সেন্সরি সম্পূর্ণ ভিন্ন, এর যথাযথ গবেষণা ও সঠিক পরিকল্পনার জন্য”, অঞ্জু বলেন।

কার্যক্রমটির উপযোগিতার আভাস পেয়ে দম্পতি বেবি সেন্সরি এবং তার আনুসাঙ্গিক কার্যক্রমগুলিকে ভারতে আনার পরিকল্পনা করেন, যাতে ভারতীয় সমাজে একটি ইতিবাচক প্রভাব পরে। ইউ কে তে তারা মূল প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কথা বলেন এবং একটি বিস্তৃত প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সঠিক কার্যক্রমটি নির্বাচন করেন। ফলতঃ ভারতে এবং তার পারিপর্শিক দেশগুলিতে বেবি সেন্সরি এবং তার আনুসাঙ্গিক কার্যক্রমগুলি আনতে প্রধান ফ্র্যান্চাইস রূপে পুরস্কৃত হন।

তারা ইউ কে তে যথেষ্ট সময় ব্যায় করেন যাতে তারা বিভিন্ন কার্যক্রম ও তাদের ব্যাবসায়িক দিকগুলির ওপর প্রশিক্ষণ নিতে পারেন। অবশেষে পরিবার সমেত তারা ভারতে ফিরে আসার সিদ্ধান্ত নেন এবং এই কার্যক্রমগুলি যাতে ভারতে সফল হয়,তার ওপর মনোনিবেশ করেন। “আমরা সে সব অভিভাবকদের সাহাজ্য করতে পেরে গর্বিত, যারা তাদের নিজেস্ব পরিবার থেকে দুরে থাকেন এবং নিজেদের সঠিক পিতৃত্ব বা মাতৃত্বের বিষয়ে অবগত নন”, জোস বলেন।

কার্যক্রম ও তার উপকারিতা

অঞ্জু আরও বলেন যে, “বেবি সেন্সরির প্রত্যেকটি কার্যকলাপই বিজ্ঞানসম্মত, যেখানে পরিপূর্ণ আকর্ষনীয় দৃশ্য, আওয়াজ, গন্ধ, রঙ এবং বিভিন্ন উপকরন, যার সাহাজ্যে একটি শক্ত ভিত গড়ে তোলা সম্ভব – রয়েছে, যা একটি শিশুর মানসিক বিকাশকে উতসাহ দান করে”।

এক থেকে পাঁচ বছরের শিশুদের জন্য টডলার সেন্স পরিকল্পনা। পুরস্কৃত শিশুবিকাশ ক্লাসগুলি, শিশুদের শব্দভাণ্ডারের প্রতি এক স্বপ্নমধুর ছায়াপথে নিয়ে যায়।

এখানে কাঠামোগত কার্যকলাপ, অন্বেষণ ও কল্পনার হাত ধরে চলে। প্রত্যেক সপ্তাহেই একটি বিষয় নির্বাচন করা হয়। বিষয়টি নিখুতভাবে বাছা হয়, যা একটি শিশুর মস্তিস্ক, তার সমন্বয় এবং শারীরীক বিকাশকে উদ্দীপিত করে।

বিকাশ ও ভবিষ্যতের পরিকল্পনা

একটি ঠিকানা ও সাপ্তাহিক একটি বেবি সেন্সরি ক্লাস থেকে শুরু করে, আজ এ জে প্লাকাল এডুভেঞ্চারস্ সারা বেঙালুরুতে তিনটি কেন্দ্রে বিস্তার করেছে। এই কেন্দ্রগুলিতে তারা বেবি সেন্সরি ক্লাস ও টডলার সেন্সরি ক্লাস, দুইই করান। সপ্তাহে সপ্তাহে শিশু ও তাদের অভিভাবকদের সংখ্যা প্রায় দশ গুণ করে বেড়ে চলেছে।

যেসব শিশু ক্লাসে রেজিস্টার করছে, তার সার্বিক সংখ্যাও মাসে মাসে বাড়ছে। “আমাদের রেভেনিউ মডেল খুবই সহজ। আমরা আমাদের ক্লাস, পড়াশুনা এবং যত্নসেবার জন্য গ্রাহকদের কাছ থেকে একটি পারিশ্রমিক নিই। ভবিষ্যতে আমাদের আয়ের প্রধাণ উতস হবে, আমাদের কেন্দ্র থেকে উঠে আসা পারিশ্রমিক ও ফ্রানচাইসিং আয়ের মিশ্রন”, বলেন জোস।

সম্প্রতি দম্পতিযুগলের প্রধাণ উদ্দেশ্য দেশ জুড়ে বিভিন্ন বেবি সেন্সরি, টডলার সেন্স ও দ্য অ্যালকেমি স্থাপন করার, যাতে নিজস্ব কেন্দ্র ও ফ্রানচাইসিং কেন্দ্রের মাধ্যমে তারা অভিভাবক ও শিশুদের কাছে পৌঁছতে পারেন।

“আমাদের ফ্রানচাইসিং কার্যক্রম এমনই ভাবে সুগঠিত যাতে মহিলারা যারা সহজবশ্য ব্যবসায়িক সুজোগ খুঁজছেন, তারা অনায়াসে নিজেদের সময়সূচী অনুযায়ী এখানে যোগ দিতে পারবেন”, বলেন অঞ্জু।

তারা বিভিন্ন নতুন আন্তর্জাতিক পূর্ব-শিক্ষা কার্যক্রম সূচনা করার কাজ আরম্ভ করে দিয়েছেন। তার মধ্যে অন্যতম মিনি প্রফেসার, যা ২০১৬র প্রথম অর্ধে আরম্ভ হতে চলেছে। “সামনের দু-বছর, বেবি সেন্সরি, টডলার সেন্স ও মিনি প্রফেসার উপস্থিত থাকবে দেশের সমস্ত প্রধাণ শহরে”, দাবী করেন জোস।

Add to
Shares
0
Comments
Share This
Add to
Shares
0
Comments
Share
Report an issue
Authors

Related Tags