সংস্করণ
Bangla

কলার থেকেই ছবি তুলবে FITT360

24th Jan 2018
Add to
Shares
8
Comments
Share This
Add to
Shares
8
Comments
Share

মোবাইল ফোন তো কবে থেকেই হ্যান্ডস ফ্রি। কানে ইপি গুজলেই বাক্যালাপ করুন বা গান শুনুন কেউ টেরটি পাবে না। এবার ক্যামেরাও হ্যান্ডস ফ্রি হতে চলল। শুধু তাই নয় ৩৬০ ডিগ্রি ছবি তুলবে ওই হ্যান্ডস ফ্রি ক্যামেরা। এবার আপনি বলতেই পারবেন আপনার পিছনেও চোখ আছে। এতদিন ছবি তুলতে দেখার প্রয়োজন ছিল এখন আর সেটারও প্রয়োজন নেই। ছবির প্রয়োজনেই ছবি উঠবে। নিখুঁত ফ্রেমে। প্রয়োজনে লাইভ স্ট্রিমিং হবে। জল, তাপ এবং ঠান্ডায় খারাপ হওয়ার কোনও চান্স নেই। দুটি হাত ফাঁকা রেখে গলায় কলারের মতো ঝুলিয়ে দিলেই হল। ক্লিক, ক্লিক, ক্লিক। ইচ্ছে মতো ছবি ঠিক যেমনটা মন চায়। অত্যাধুনিক এই ক্যামকোডার নিয়ে এসেছে স্যামসং। FITT360 নামে বাজারে ছাড়া হয়েছে।

image


সংস্থার কিকস্টারটার পেজের রিপোর্ট অনুযায়ী, ‘FITT360 বিশ্বের প্রথম নেকব্যান্ড ৩৬০ ডিগ্রি ক্যামেরা। এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যাতে হ্যান্ডস ফ্রি ডিভাইসে ৩৬০ ডিগ্রি অ্যাঙ্গেলে ছবি তোলা যায়’। স্যামসং এবং লিঙ্কফ্লো যৌথভাবে ক্যামেরাটি ডিজাইন করেছে। কীভাবে সম্ভব হল? আসলে ব্যান্ডের ওপর তিনটি ক্যামেরা কৌশলে বসানো থাকে। শুধু স্টিল নয়, ব্যবস্থা রয়েছে ভিডিও তোলারও। আর ওয়াই—ফাই থাকলে তো কথাই নেই। পেরিস্কোপের মাধ্যমে লাইভ স্ট্রিম কোনও ব্যাপারই নয়। ছবি ডাউনলোড করতে চাইলে তারও সুবিধা আছে। FITT360 বড় ৩৬০ ডিগ্রি ইমেজ ও এক একটি 4K full HD ছবি এবং ভিডিও এক্সপোর্ট করা যায়। আসলে FITT360 এই সফটওয়্যারটি ৩টি ক্যামেরার ফুটেজকে একসঙ্গে গেঁথে দেয়। ইউজার চাইলে প্রিভিউ এমনকি SNS এর মাধ্যমে রিয়েল টাইম ভিডিও শেয়ারও করতে পারেন।

৩টি ভিন্ন আকারে ডিভাইসটি পাওয়া যায়। ডিজাইন করার সময় মাথায় রাখতে হয়েছে এমন ডিভাইস হবে যার মধ্যে অনেক শক্তিশালি ফিচার থাকবে, হালকা এবং ব্যবহার করা সহজ হবে, খুব বেশি মোটা, ভারি বা ইউজারের পক্ষে অস্বস্তিকর যেন না হয়। নির্মাণকারীদের মতে, FITT360 ব্যবহার করা খুব সহজ। রেকর্ডিং চালু এবং বন্ধ করার জন্য কোনও রিমোট অ্যাপ্লিকেশন নয় বরং ডিভাইসের সঙ্গেই রয়েছে বাটন। রয়েছে GPS যাতে ইউজার নিজের পথ হিসেব করে নিতে পারেন। আর আছে ব্লু টুথ এবং মাইক্রোফোন। প্রয়োজনে হেডসেট হিসেবেও ব্যবহার করা যাবে।

এত ফিচারের পরও অবশ্য কিছু সীমাবদ্ধতা আছে FITT360 এর। ৯০ মিনিট পর্যন্ত রেকর্ডিং করা যাবে। কখনই তার বেশি নয়। তার কারণ অবশ্য ব্যাটারি। আকারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রাখতে গিয়ে যে ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে তার পাওয়ার সাপ্লাই সীমিত। কিছু দিন আগে কিকস্টারটারে FITT360 লঞ্চ করা হয়েছে। টার্গেট রাখা হয়েছে ৫০,০০০ ডলার। দাম কত রাখা হবে এখনও ঠিক না হলেও মোটামুটি এক একটি ৩৭০ থেকে ৬০০ ডলার পর্যন্ত দাম হতে পারে বলছে কিকস্টারটার। 

Add to
Shares
8
Comments
Share This
Add to
Shares
8
Comments
Share
Report an issue
Authors

Related Tags