সংস্করণ
Bangla

শুরুয়াতিদের ডুবিয়ে দিতে পারে ৫টি ভুল

YS Bengali
14th Jan 2016
Add to
Shares
0
Comments
Share This
Add to
Shares
0
Comments
Share

২০১৫-র শুরুর দিকে প্রতিদ্বন্দ্বী ‌embibe.com যখন আমাদের স্টার্টআপ 100Marks অধিগ্রহণ করল তখন আমরা (আমি ও আমার স্ত্রী অনুশ্রী, 100Marks -এর সহ প্রতিষ্ঠাতা)ভীষণ উৎসাহিত ছিলাম। কারণ বিউটি সেক্টর শুরুয়াতিদের জন্য সবথেকে লাভজনক আর মসৃণ মনে হয়েছিল। এমনটা মনে করার অবশ্য দুটি কারণও আছে।

প্রথমত, প্রত্যেক লেনদেনে লভ্যাংশের পরিমাণ

দ্বিতীয়ত, সেইসময় বাজারে খুব বেশি প্রতিদ্বন্দ্বী ছিল না

আমাদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছিলেন আরও ২ জন। নিজস্ব অটোমোবাইল ব্যবসায় ১০ বছরের অভিজ্ঞতাসম্পন্ন হীমাংশু মল্লিক। আরেকজন ছিলেন অ্যামাজনের প্রাক্তন আধিকারিক। এই ম্যানেজমেন্টে ভর করে এবার স্টাইল আর ফ্যাশনের দুনিয়ায় ভাগ্য পরীক্ষার ঝুঁকি নিয়ে নিলাম।

দ্রুত সৌন্দর্য্য বিশেষজ্ঞদের নিয়োগ করা হল, অভিজ্ঞ বিউটিশিয়ানদের একটি টিম আর প্রয়ুক্তি বিশারদদের একটি টিম তৈরি করা হল।কিন্তু মাত্র ৫ মাসেই সব শেষ। ততদিনে জলের মতো ভেসে গিয়েছে অর্থ। বিনিয়োগ দাঁড়িয়েছে ৩ কোটি (এরমধ্যে ৬০ লক্ষ টাকা লগ্নির প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন বিনিয়োগকারীরা) এই অবস্থায় ব্যবসার ঝাঁপ ফেলা ছাড়া আর কোনও পথ ছিল না।


image


এই ব্যর্থতা থেকে আমরা যে পাঁচটি শিক্ষা পেয়েছিলাম, তা হল,

  1. ব্যবসার ব্যাক আপ থাকা অত্যন্ত জরুরি। কন্টকমুক্ত পথে হেঁটে বাজারে প্রবেশ করা অসম্ভব ঘটনা নয়, কিন্তু এই মসৃণতাই কিন্তু আর পাঁচটা প্রতিদ্বন্দ্বীকে আকর্ষণ করে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করতে পারে।
  2. শুধুমাত্র বিপুল ছাড়ের রাস্তায় হেঁটে লাভের কড়ি ঘরে তোলার পরিকল্পনা বোকামো ছাড়া আর কিছু নয়। তাতে ব্যবসারই ক্ষতি হয়। প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে আমরাও গ্রাহকদের ৫০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিতাম। কিন্তু তাতে আখেরে ব্যবসারই ক্ষতি হয়েছে। প্রথম প্রথম ইমেজ তৈরি করতে আমরা বিউটিশিয়ানদের ক্যাবে গ্রাহকদের কাছে পাঠাতাম। ছাড় দেওয়ার পর আমাদের হাতে থাকত ৯০০ টাকা, যার মধ্যে ৬০০ টাকাই বিউটিশিয়ানের গাড়ি ভাড়ার পিছনে খরচ হয়ে যেত। আবার বিউটিশিয়ানরা ভাল রেটিং পেলে তাঁদের ২০০ টাকা ইনসেনটিভ দেওয়া হত। ফলে যা হওয়ার তাই হল।
  3. সময় খুব জরুরিআমরা বিউটিশিয়ান, কনসালট্যান্ট রেখে ব্যবসা শুরু করে দিয়েছিলাম অথচ ব্যবসার মার্কটিং বা প্রচারের ব্যাপারটা নিয়ে মাথাই ঘামাইনি। নিজস্ব মোবাইল অ্যাপ বাজারে আনার আগে বিনিয়োগ পেতেও চেষ্টা করিনি। ফলে সেই সুযোগের সদব্যবহার করে ভাল বিনিয়োগকারীদের পকেটে পুরেছে প্রতিদ্বন্দ্বী সংস্থাগুলো।
  4. পথের কাঁটা ভাল করে চিনুনপ্রত্যেক ব্যবসায়ীর জন্য বৃদ্ধি খুব জরুরি। কিন্তু সেই লক্ষ্যে পৌঁছানোর পথে বাধা কে ? একেবারে প্রাথমিক স্তরেই সেই বাধা চিহ্নিত করতে হবে যাতে সামনের পথ কন্টকমুক্ত হয়।
  5. ব্যাঙ্কে জমা না পড়লে সেই টাকা আপনার নয় ব্যবসায় ঝাঁপ ফেলার আগে আমরা শেষ চেষ্টা করেছিলাম তাকে বাঁচানোর। বিনিয়োগকারীদের থেকে এ ব্যাপারে মৌখিক প্রতিশ্রুতিও পেয়েছিলাম।সেই আশ্বাসে ভর করেই মোবাইল অ্যাপ তৈরিতে আরও টাকা ঢাললাম।মডেল, ফোটোগ্রাফারদের দিয়ে ফটোশ্যুট, বেশি বেতন দিয়ে কর্মী নিয়োগ—এসবই একটু একটু করে কফিনে পেঁড়েক পোঁতার কাজ করছিল।
image


এর থেকে শিক্ষা পেলাম কখনও কারও মৌখিক আশ্বাসে বিশ্বাস করতে হয় না। কারণ টাকা ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে জমা না পড়া পর্যন্ত নিজের বলা চলে না।

লেখক সম্পর্কে দু-একটি কথা

প্রদীপ কুমার, বর্তমানে তাঁর নতুন স্টার্টআপ জোপচ্যাট নিয়ে ব্যস্ত। চ্যাটিংয়ের মাধ্যমে গ্রাহকদের বেস্ট ডিল, ডিসকাউন্ট আর কুপন কোডের সুলুক সন্ধান দেওয়াই তাঁর লক্ষ্য।

(এই লেখায় প্রকাশিত মতমত শুধুমাত্র গ্রাহকের। এতে ইওরস্টোরির দৃষ্টিভঙ্গি প্রকাশিত হয় না)

অনুবাদ শিল্পী চক্রবর্তী

Add to
Shares
0
Comments
Share This
Add to
Shares
0
Comments
Share
Report an issue
Authors

Related Tags