সংস্করণ
Bangla

বাংলা ছবির প্রচারের ওয়ান স্টপ সলিউশন-ফেম পার সেকন্ড

sananda dasgupta
12th Oct 2015
Add to
Shares
0
Comments
Share This
Add to
Shares
0
Comments
Share
ফেম পার সেকন্ড টিম

ফেম পার সেকন্ড টিম


গত কয়েক বছরে বাংলা ছবির জগতটা বদলেছে অনেকটাই। ছবির গল্প, চিত্রায়ণ, পরিবেশনা বা সঙ্গীত, বদল এসেছে প্রতিটা ক্ষেত্রে। শহুরে মধ্যবিত্ত নতুন প্রজন্ম হলমুখো হয়েছে নতুন করে। কলেজ ক্যান্টিন থেকে মধ্যবিত্তের ড্রয়িংরুমের আড্ডায় ফিরে এসেছে বাংলা ছবি। ছবির বিষয় ও দর্শক বদলানোর সঙ্গে সঙ্গেই পরিবর্তন এসেছে ছবির ব্র্যান্ডিং থেকে মার্কেটিং প্রতিটি ক্ষেত্রে। আর ঠিক এই জায়গাটিতেই কাজ করতে শুরু করেছে ফেম পার সেকন্ড. স্টার্ট আপটির বয়স বছর তিন, ইতিমধ্যেই আশ্চর্য প্রদীপ, তাসের দেশ, খাসি কথা, ফ্যামিলি অ্যালবাম, নাটকের মতো সহ বেশ কয়েকটি ছবির কাজ করেছে।


image


“বাংলা ছবির বাজার খুবই সম্ভবনাময়, কিন্তু আমরা দেখি কলকাতায় এমন কোনও কোম্পানি নেই যারা ছবির প্রচারের ক্ষেত্রে শুরু থেকে শেষ অবধি কাজ করবে, মানে ধরুন একটি ছবি তৈরি হচ্ছে, তার একটি নির্দিষ্ট টার্গেট অডিয়েন্স রয়েছে, তাঁদের কথা মাথায় রেখেই ছবির ডিজাইন, সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার, ছবির মধ্যে ও ছবি তৈরির পর তার ব্র্যান্ডিং, মার্কেটিং, প্রচার প্রতিটা বিষয় করা দরকার এবং এই প্রতিটিকে একটি সুতোয়ে বাধা খুব প্রয়োজনীয়। একজন ডিজাইন করলেন, অন্য একজন মার্কেটিং এতে কিন্তু ছন্দটা থাকে না, হিমশিম খেতে হয় প্রোডাকশন হাউসকে। তাই আমরা এমন একটা কোম্পানি খুলতে চাইছিলাম যেখানে এক ছাতার তলাতেই পাওয়া যাবে সব কটি পরিষেবা,” জানালেন ফেম পার সেকন্ডের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সুমন সেন।

বিজ্ঞাপন, মার্কেটিং, ব্র্যান্ডিং এর জগতটার সঙ্গে আগে থেকেই পরিচিত ছিলেন আইআইএসডব্লিউবিএম এর প্রাক্তনী সুমন। কাজ করেছেন মুদ্রা, মাইন্ডশেয়ার, ল অ্যান্ড কেনেথের মতো নামজাদা সংস্থার সঙ্গে। আর ছিল ছবির প্রতি ভালবাসা ও দেশে বিদেশের ছবি দেখার অভ্যাস। নিজের দক্ষতা ও ভালবাসাকে মিলিয়ে কিছু একটা শুরু করতে চাইছিলেন, ফেম পার সেকন্ডের ভাবনা সেখান থেকেই। সঙ্গী হিসেবে পেয়ে যান সানি ঘোষ রায় ও স্নিগ্ধা বাসুকে।


গত ১০ বছর ধরে গণমাধ্যম ও বিনোদন শিল্পে কাজ করছেন সানি.। ঘনিষ্টভাবে কাজ করেছেন ঋতুপর্ণ ঘোষ, মণি রত্নম ও প্রসেনজিত চট্টোপাধ্যায়ের মতো ব্যক্তিত্বদের সঙ্গে। নিজের ব্যবসা শুরু করেন বছর সাতেক আগে। গ্রে স্কেল এন্টারটেইনমেন্ট এর প্রপরাইটার ও অ্যাক্রোপলিস এন্টারটেইনমেন্টের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সানি, সহপ্রতিষ্ঠাতা হিসেবে সুমনের সঙ্গে তৈরি করেন ফেম পার সেকন্ড।

স্নিগ্ধা কেরিয়ার শুরু করেন বলিউডে। ছবির সেট ও ইন্টিরিয়রের দায়িত্ব স্নিগ্ধার, কাজ করেছেন গুজারিস, থ্রি ইডিয়টস্, পিকে, ধুম থ্রি, ককটেল, রকস্টার, ভাগ মিলখা ভাগ, বজরঙ্গী ভাইজানের মতো ছবিতে।


image


“আমাদের প্রত্যেকের আলাদা আলাদা নিজস্ব কিছু দক্ষতা রয়েছে। সেইগুলিকে একসাথে এনে আমরা একেবারে অন্যরকমের কিছু কাজ করতে চাইছি, এবং সেটা সৃজনশীল ভাবে। গতে বাধা নিয়মের বাইরে গিয়ে। আমরা নতুন যুগের মার্কেটিং কমিউনিকেশন কনসালট্যান্ট। আমাদের বিশেষত্ব ডিজিটাল পদ্ধতির ব্যবহার। কলকাতায় এইধরণের কাজ খুব বেশি কেউ করছে বলে মনে হয়না”, বললেন সুমন।

শুধুমাত্র ছবির ব্র্যান্ডিংএ আটকে না থেকে ফেম পার সেকন্ড এখন কাজ করছে মিউজিক অ্যালবাম থেকে শুরু করে রেস্তোরাঁ সবধরণের গ্রাহকের সঙ্গেই।


বাংলা ব্যান্ড চন্দ্রবিন্দুর অ্যালবাম  আর্ট

বাংলা ব্যান্ড চন্দ্রবিন্দুর অ্যালবাম আর্ট


বর্তমানে কোম্পানির কর্মী সংখ্যা ১৫। জি বাংলা সিনেমা, ইউরোর টেক, এবিপি-ইনফোকম, প্রিয়া এন্টারটেইনমেন্টের মতো সংস্থার সঙ্গে কাজ চলছে। সম্প্রতি অতীতে যৌথভাবে কাজ হয়েছে দ্য টেলিগ্রাফ, ফ্রেন্ডস এফএম, রিল্যায়েন্স এন্টারটেইনমেন্ট, সিইএসসি, প্রাণ লিচি, স্টার জলসা, ইটিভি বাংলা, এনএফডিসি, অ্যারো ইয়ং লাইভস্ (ইউকে) এর সঙ্গে।


ফ্রেন্ডস এফ এম এর ক্যাম্পেন

ফ্রেন্ডস এফ এম এর ক্যাম্পেন


“নিশ্চয়তার চাকরি ছেড়ে ব্যবসায় আসা। বাঙালির ছেলে হিসেবে সিদ্ধান্তটা নেওয়া সহজ ছিল না বুঝতেই পারছেন, তবে এই যে গত তিন বছর বা বলতে পারেন ১০৯৬ টি দিন ও রাত কাজটা খুব আনন্দের সঙ্গেই করেছি, পথটা এমন কিছু কঠিন ছিল না। মহম্মদ আলির ভাষায় বলা যায় আমাদের নিজেদের জুতোতে কিছু নুড়ি পাথর ছিল, মাঝে মাঝেই সেগুলো ছোটোখাটো ঝামেলা করেছে”, হাসতে হাসতে জানালেন সুমন।

ভবিষ্যত পরিকল্পনা বলতে এক কথায় সারাভারতে ব্যবসা করা। সম্প্রতি একটি প্রযুক্তি ও ডেভেলপমেন্ট কোম্পানির সঙ্গে যৌথভাবে কাজ শুরু করেছে ফেম পার সেকন্ড। দু’টি সংস্থা তাদের নিজের নিজের দক্ষতা দিয়ে এক সঙ্গে ব্র্যান্ডগুলির ডিজিটাল সমাধানের কাজ করবে। এছাড়াও ব্র্যান্ড আইডেন্টিটি, খুচরো ও ডিজাইনিংএর শাখাগুলিকেও আরও জোরদার করছে ফেম পার সেকন্ড, মূল কাজ হবে মুম্বইতে।

“আমরা এমন কিছু ক্যাম্পেন করতে চাই যা মানুষ দীর্ঘদিন মনে রাখবেন। তৈরি করতে চাই ব্র্যান্ড। আমাদের কাজ ব্র্যান্ড ও দর্শকের মধ্যে আলাপচারিতা শুরু করানো, তা কর্মী, পার্টনার বা ক্রেতা যে কোনও কারও সঙ্গেই হতে পারে”, বললেন সুমন।

ওয়েবসাইট- www.famepersecond.com

Add to
Shares
0
Comments
Share This
Add to
Shares
0
Comments
Share
Report an issue
Authors

Related Tags