সংস্করণ
Bangla

চা-ওয়ালার ছেলে সৌরভ সাঁতরে পেরোবেন দারিদ্র্য

tiasa biswas
21st Mar 2016
Add to
Shares
2
Comments
Share This
Add to
Shares
2
Comments
Share

ভোরের আলো ফুটতেই সাইকেলটা নিয়ে বাবার গুমটিতে হাজিরা। তারপর ঘুগনি-রুটি প্লেটে সাজিয়ে একে একে খদ্দেরদের হাতে ধরিয়ে একটু ফুরসত পেতেই বেলা গড়িয়ে যায়। আবার ছুট সেই সাইকেলে চেপেই। এবার গন্তব্য ক্লাবের পুলটা। যেখানে অন্য রূপকথার গল্প বোনেন বছর কুড়ির যুবক সৌরভ সাহা। জাতীয় স্তরে প্রতিযোগিতায় সোনাজয়ী সাঁতারু। চরম আর্থিক অনটনকে ফুৎকারে উড়িয়ে বাংলার সাঁতারে আলোর দিশা দেখাচ্ছেন এই তরুণ।

image


রাস্তার ধারে ছোট্ট গুমটিটায় যারা খেতে আসেন তাঁদের অনেকেই জানেন না চায়ের দোকানে কাজ করা এই তরুনের আরও একটা পরিচয় আছে। কে বুঝবে, এই ছেলেটাই বাংলার সাঁতারের ভবিষ্যৎ তারকা। নিশ্চিত করে বলা যায়, দোকানে বসে থাকা এই মানুষগুলো বুঝতে পারে না এই তরুণের হাত ধরে জাতীয় স্তরে সাফল্যের হাসি হাসছে বাংলার সাঁতার।

বাংলার প্রতিভাবান সাঁতারু সৌরভ সাহা জাতীয় স্তরে সোনা সহ একাধিক সাফল্য এনেছেন বারবার। রাজ্যস্তরে দুশো মিটার বাটারফ্লাই বিভাগে রেকর্ড গড়েছিলেন। কলকাতার উমাকান্ত সেন লেনের দশ ফুট বাই দশ ফুটের ঘর জুড়ে ছড়িয়ে আছে সার্টিফিকেট আর মেডেল। সাঁতার অনুশীলনের খরচ কম নয়। সামান্য চায়ের দোকান থেকে যা আয়, তাতে তিন জনের সংসারে খাওয়া খরচটুকু জোগাড় হয়ে যায়। ছেলের পড়াশোনার পাশাপাশি সাঁতারের অনুশীলন একসঙ্গে চালানো সম্ভব ছিল না। ‘সংসারে অনটন। তাই কলেজে ভর্তি হওয়ার পর আর পড়াশোনাটা চালিয়ে যেতে পারিনি। সংসারের হাল ধরতে হয়েছে। রুটি, ঘুগনি আর চায়ের গুমটিতে বাবার সঙ্গে কাজে হাত লাগাই। পড়া শেষ করতে না পারার আক্ষেপ রয়েছে। তবে সাঁতারের সাফল্য সেই আক্ষেপ মিটিয়ে দিয়েছে অনেকটাই’,বলছিলেন সৌরভ।

ছেলের সাফল্যে গর্বে বুক ভরে যায় বাবা পিনাকী সাহা আর মা শাশ্বতী সাহার। আর্থিক সঙ্গতিতে কুলিয়ে উঠতে পারেন না। বলছিলেন, ‘ঠিক মতো অনুশীলনের ব্যবস্থা করতে পারিনি ছেলের জন্য। তবু সাধ্যমতো চেষ্টা করি। ওর বাবা দিনরাত পরিশ্রম করে যা আয় করে তা যথেষ্ঠ নয়। কেউ সাহায্যে এগিয়ে এলে সৌরভের মতো প্রতিভা আরও জ্বলে উঠতে পারত’, বলতে বলতে গলা ধরে আসছিল মা শাশ্বতীর।

চরম আর্থিক কষ্টের মধ্যেও স্বপ্ন দেখেন সৌরভ। স্বপ্ন দেখেন সৌরভের বাবা মা। জাতীয় স্তর পেরিয়ে আন্তর্জাতিক স্তরে পৌঁছে যাওয়ার হাতছানি সৌরভের সামনে। সেই লক্ষ্যেই নিয়মিত কঠোর অনুশীলন চলছে। 

দারিদ্রক্লিষ্ট সৌরভ জলে নামলেই এগিয়ে যান দ্রুত। কোনওরকম প্রতিবন্ধকতা বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে না। কারণ জলে যে সৌরভই রাজা।

Read Related Story

ফাইট সায়নী ফাইট... আরও... আরও...

Add to
Shares
2
Comments
Share This
Add to
Shares
2
Comments
Share
Report an issue
Authors

Related Tags