সংস্করণ
Bangla

ভারতের অন্যতম ধনী মহিলা অণু আগার জীবনের ওঠাপড়া

10th Dec 2016
Add to
Shares
21
Comments
Share This
Add to
Shares
21
Comments
Share

অণু আগা মুম্বইয়ের মেয়ে। যে কোনও মানুষকেই তাঁর জীবনের ওঠাপড়ার অধ্যায়গুলিতে প্রেরণা দিতে পারে অণু আগার জীবনটি। ভারতের প্রথম আটজন ধনী মহিলার ভিতর অন্যতম তিনি। একসময়ে Thermax Ltd নামে একটি সংস্থার চেয়ারপার্সন ছিলেন।

image


অণুর জীবদদর্শন হল, কেউই মহান হয়ে জন্মাননি। কাজের ভিতর দিয়ে মানুষকে তাঁর মহত্ত্বের পরিচয় দিতে হয়। আর সে জন্য তাঁকে চলতে হয় লাগাতার সংগ্রামের ভিতর দিয়ে।

অণুর বাবা ছিলেন ব্যবসায়ী। Thermax Ltd সেই মানুষটিরই হাতে তৈরি। তবে সংস্থাটি তখন ছিল ছোট। পরবর্তীকালে অণু ও তাঁর স্বামী রোহিন্তন মিলে এই সংস্থাটি বড় করে তোলেন।

মুম্বইয়ের সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজে অর্থনীতি নিয়ে লেখাপডা করেছেন অণু। পরে মেডিক্যাল ও সাইক্রিয়াট্রিক সোশ্যাল ওয়ার্ক নিয়ে লেখাপড়া করেন। আর রোহিন্তন ছিলেন অত্যন্ত মেধাবী ছাত্র। সম্পর্কে অণুর এক দাদার বন্ধু। লেখাপড়া করেছেন কেমব্রিজে। উচ্চপদে চাকরি করতেন বহুজাতিকে।

রোহিন্তনের সঙ্গে আলাপের পরে তাঁকে ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন অণু। বহুজাতিকের মোটা টাকার চাকরি ছেড়ে বিয়ের পরে রোহিন্তন যোগ দেন অণুর বাবার সংস্থা Thermax Ltd-এ। ওই ছোট সংস্থাটি অণু ও রোহিন্তন মিলে বড় করে তোলেন। বর্তমানে এটি ৪,৯৩৫ কোটি টাকার কম্পানি।

একটা সময় পর্যন্ত সবকিছুই ঠিকঠাক চলছিল। কিন্তু পরপর দুবার হার্ট অ্যাটাকের জেরে মারা যান রোহিন্তন। স্বভাবতই অণু একা হয়ে পড়েন। শুরু হয় আর এক সংগ্রাম। সেই সংগ্রামেও শেষপর্যন্ত উতরে গিয়েছেন। তাঁর মেয়ে এখন একজন প্রতিষ্ঠিত কেমিক্যাল ইঞ্জিনীয়ার। বসবাস লন্ডনে। Thermax Ltd –এ শুরুতে হিউম্যান রিসোর্স বিভাগের দায়িত্ব সামলেছেন অণু। পরে সংস্থার চেয়ারপার্সন হিসাবে কাজ করেছেন যথেষ্ট দক্ষতার সঙ্গেই।

জীবনে এপর্যন্ত শোক অনেকই পেয়েছেন। শুধু স্বামীকেই হারাননি – পথ দুর্ঘটনায় অণু হারিয়েছেন ২৫ বছরের তরতাজা ছেলেকেও। জীবনের এইসব ওঠাপড়ার সত্ত্বেও সমাজসেবার কাজে বেশি বেশি করে মনোনিবেশ করেন অণু আগা। আর নিজে বিশ্বাস করেন, জীবনটিকে যত সহজ-সরলভাবে কাটানো যেতে পারে ততই মঙ্গল।

এমুহুর্তে এ দেশের একজন বিশিষ্ট মহিলা সমাজসেবী অণু। Akaknksha নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থায় উপদেষ্টা হিসাবে এখন কাজ করছেন। এই সংস্থাটি দরিদ্র মেধাবী ছেলেমেয়েদের উচ্চশিক্ষায় সহায়তা করে থাকে। অণু বললেন, এই নিয়ে বেশ আছি। আর জীবনে শান্তি পেতে বেছে নিয়েছি বিপাসনা। ২০১০ সালে সমাজসেবামূলক কাজে অবদানের জন্যে অণু আগাকে পদ্মশ্রী উপাধিতে ভূষিত করা হয়।

Add to
Shares
21
Comments
Share This
Add to
Shares
21
Comments
Share
Report an issue
Authors

Related Tags